সোমবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৫:২৪ অপরাহ্ন

আপডেট
*** অনলাইন নিউজ পোর্টাল / অনলাইন টেলিভিশন সহ যে কোন ধরনের ওয়েবসাইট তৈরির  জন্য আজই যোগাযোগ করুন  - ০১৬৪৬৯৯০৮৫০।।  ভিজিট করুন - www.popularhostbd.com।।

গাইবান্ধায় সাদুল্যাপুরে রতন মিয়ার পরিবার সংবাদ সম্মেলন

গাইবান্ধায় সাদুল্যাপুরে রতন মিয়ার পরিবার সংবাদ সম্মেলন

গাইবান্ধা প্রতিনিধি : গাইবান্ধা জেলার সাদুল্লাপুর উপজেলার কিশামত দূর্গাপুরে আর্থিক লেনদেনের বিষয় নিয়ে মনমালিন্য সৃষ্টি হয়ে একই গ্রামের সাবু মিয়ার গং দ্বারা রতন মিয়ার পরিবার নিরাপত্তা হীনতায় ভোগাসহ রতন মিয়া আহত হওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এ বিষয়ে প্রশাসন এর হস্তক্ষেপ চেয়ে গাইবান্ধা শহরের ডিবি রোড¯ সংবাদ সম্মেলন করেছে রতন মিয়া ও তার পরিবার। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে জানা গেছে, গাইবান্ধা জেলার সাদুল্লাপুর উপজেলার কিশামত দূর্গাপুরের মৃত বদিয়াজ্জামান এর পুত্র রতন মিয়ার সাথে একই গ্রামের পার্শ্ববর্তী বাসিন্দা সাবু মিয়া গংদের সাথে আর্থিক লেনদেন সংক্রান্ত মনমালিন্যর সৃষ্টি হয়।
এ বিষয়ে এলাকার গণ্যমান্য লোকজন স্থানীয়ভাবে আপোষ নিস্পত্তি করে দিলেও গত ১লা নভেম্বর ১৯ ইং তারিখ রাত্রি ৯ টা ৩০ মিনিটে রতন মিয়া উপজেলার তরফজাহান মৌজাস্থ ঝাউলার বাজার নামকস্থানে মিজানুর রহমান এর গালামালের দোকানে পৌছলে পূর্ব থেকে ওত পেতে থাকা একই গ্রামের সাবু মিয়া ও মৃত হাকিম উদ্দিনের পুত্র তার সহযোগী আব্দুল জলিল, রফিকুল ইসলাম এর পুত্র রায়হান মিয়া সহ অজ্ঞাতনামা আরো ৩/৪ জন রতন মিয়া কে গালিগালাজ করতে থাকলে সে বাধা দিলে সাবু মিয়া ও তার লোকজন তাকে ছোরাদ্বারা মাথায় আঘাত করে তার পকেটপ থাকা টাকা পয়সা বাহির করে নিয়ে হত্যার উদ্দেশ্যে শ্বাসরোধ করার চেষ্টা করলে সে আত্বচিতকার করলে তাকে বাচাতে আশেপাশের লোকজন এগিয়ে আসলে উক্ত দাদন ব্যাবসায়ী, চাদাবাজ ও সন্ত্রাসীরা বিভিন্ন প্রকার হুমকী প্রদর্শন করে চলে যায়। পরে তার চিকিৎসার জন্য তাকে সাদুল্লাপুর হাসপাতালে ভর্তি করান। এ বিষয়ে সাদুল্লাপুর থানায় ৬ নভেম্বর ১৯ ইং তারিখ একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। যার মামলা নং- ৫, ও জি,আর-২৬৬/১৯। মামলা করার খবর শুনে সাবু গংরা রতন মিয়ার স্ত্রীকে মামলা তুলে নেয়ার জন্য চাপ প্রয়োগ করে বিভিন্ন রকম ভয়ভীতি প্রদর্শন করতে থাকে পরবর্তীতে ১২ নভেম্বর ১৯ ইং তারিখ এজাহার নামীয় ২ ও ৩ নং আসামী জামিন পেয়ে বের হয়ে তার এস,এস,সি পরিক্ষার্থী মেয়ে মীমকে তুলে নিয়ে রেপ করা ও তাকে এবং তার স্ত্রীকে বিভিন্ন রকম হুমকী প্রদর্শন করে। ইতিপূর্বেও আমার মেয়েকে তুলে নিয়ে রেপ করার হুমকী দেয়ার জন্য সাদুল্লাপুর থানায় একটি সাধারন ডায়েরী করা আছে। বর্তমানে রতন মিয়া ও তার পরিবার বড় ধরনের ক্ষতি সাধন সহ তাদের হুমকীতে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে। এ ব্যাপারে রতন মিয়া জেলা প্রশাসক সহ পুলিশ প্রশাসন এর উদ্ধর্তন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন। সংবাদ সম্মেলনে বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন।


Search News




© Daily matrichaya. All rights reserved.
Design BY PopularHostBD