বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০২০, ১১:১০ অপরাহ্ন

আপডেট
*** অনলাইন নিউজ পোর্টাল / অনলাইন টেলিভিশন সহ যে কোন ধরনের ওয়েবসাইট তৈরির  জন্য আজই যোগাযোগ করুন  - ০১৬৪৬৯৯০৮৫০।।  ভিজিট করুন - www.popularhostbd.com।।
সংবাদ শিরোনাম :
কালকিনিতে দোয়া মাহফিল ও কেক কাটার মধ্যে দিয়ে তারেক রহমানের ৫৬তম জন্মদিন পালন সাউথ আফ্রিকায় ঠাকুরগাঁওয়ের আব্দুর রহমান সন্ত্রাসীদের গুলিতে নিহত  অবশেষে ডাসার থানা কমিটি ঘোষণা-সৈয়দ শাখাওয়াত হোসেন আহ্বায়ক কাজী দোদুল যুগ্ন আহবায়ক এবার চরের বালুতে ভাগ্য বদল করা ‘গোবিন্দগঞ্জে মিষ্টিআলু’ চাষ থমকে গেছে চারার অভাবে চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জে সড়ক দুর্ঘটনায় ০৮ জন নিহত ও ০৪ জন আহত।  জামালপুরে নাতির কুকর্মের দায়ে ৮৫ বছর বৃদ্ধের সাথে ১১বছরের শিশুকন্যার বিয়ে গোবিন্দগঞ্জ বিএম বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের এডহক কমিটির প্রথম পরিচিতি সভা অনুষ্ঠিত মাদারীপুরের কালকিনিতে বিরল রোগে আক্রান্ত শিশু নাজিফা ঠাকুরগাঁওয়ে পৃথক সড়ক দূর্ঘটনায় ২ জনের মৃত্যু, আহত-১/উভ গাইবান্ধায় বিদ্যুৎস্পৃষ্টে দাদি-নাতি ও ছেলের মৃত্যু  

সমালোচকদের বিরুদ্ধে নিপীড়নমূলক আইন প্রয়োগ করছে সু চি সরকার

সমালোচকদের বিরুদ্ধে নিপীড়নমূলক আইন প্রয়োগ করছে সু চি সরকার

শান্তিতে নোবেল বিজয়ী মিয়ানমারের নেত্রী অং সান সু চির সরকার সমালোচকদের বিরুদ্ধে নিপীড়নমূলক আইন প্রয়োগ করছে বলে অভিযোগ করেছে মানবাধিকার সংস্থা হিউম্যান রাইটস ওয়াচ। শুক্রবার এক বিবৃতিতে সংস্থাটি এ অভিযোগ করেছে।

‘আশাহত : মিয়ানমারে শান্তিপূর্ণ মত প্রকাশে দুর্বৃত্তায়ন’ শিরোণামে প্রতিবেদনটিতে বলা হয়েছে, ২০১৬ সালে সু চি ক্ষমতায় আসার পর থেকে মিয়ানমারের মত প্রকাশের স্বাধীনতা খর্ব হতে শুরু করেছে। সরকারি কৌঁসুলিরা সাংবাদিকদের মধ্যে ‘ভীতিজনক পরিস্থিতি’ সৃষ্টি করছে।

হিউম্যান রাইটস ওয়াচের এশিয়া অঞ্চলের আইনি পরামর্শক লিন্ডা লাখধির বিবৃতিতে বলেছেন,‘অং সান সু চি ও ন্যাশনাল লিগ ফর ডেমোক্রেসি নতুন মিয়ানমারের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন। কিন্তু সরকার এখনো শান্তিপূর্ণ কথাবার্তা ও প্রতিবাদের বিরুদ্ধে মামলা করছে এবং পুরোনো নিপীড়নমূলক আইন বদলাতে ব্যর্থ হয়েছে।’

এ ব্যাপারে মিয়ানমার সরকারের কোনো মন্তব্য পাওয়া যায়নি।

কয়েক দশক সামরিক শাসনে থাকা মিয়ানমারে বাক স্বাধীনতার ওপর কড়াকড়ি ছিল। ২০১০ সালে আধা-বেসামরিক সরকার ক্ষমতায় আসার পর সেন্সর আরোপ বাতিলসহ বেশ কিছু সংস্কারমূলক পদক্ষেপ নেওয়া হয়, মতপ্রকাশ ও সমাবেশে ইতিবাচক অবস্থান নেওয়া হয়।

হিউম্যান রাইটস ওয়াচ বলেছে, সু চি সরকার কেবল নিপীড়নমূলক আইনগুলোতে আংশিক পরিবর্তন করেছে এবং অত্যাধিক বিস্তৃত, ধোঁয়াশাচ্ছন্ন এবং নিপীড়নমূলন আইনগুলো শান্তিপূর্ণ সমাবেশ ও সমালোচনার বিরুদ্ধে প্রয়োগ করছে


Search News




©2020 Daily matrichaya. All rights reserved.
Design BY PopularHostBD